,
শিরোনাম
জগন্নাথপুরে প্রবাসী সংগঠনের উদ্যোগে বন্যা দুর্গতদের মধ্যে নগদ অর্থ বিতরণ ক্ষমতায় গেলে কুইক রেন্টাল ও বিদ্যুৎ খাতে আইন বাতিল করবে জগন্নাথপুরের কলকলিয়ায় স্পেন প্রবাসী “KUDA” এর উপদেষ্টা আব্দুল গনি এনাম সংবর্ধিত “KUDA” এর যুগ্ম সম্পাদক ছোট মিয়া’র নামাজে জানাজা আজ জগন্নাথপুরে বঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকী পালন ও সেলাই মেশিন বিতরণ বিশ্ববাজারের সাথে সামঞ্জস্য রেখে বিপিসির আমদানি কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখতে জ্বালানী তেলের মূল্য সমন্বয় হাজি রওনকুল ইসলাম ও মাওলানা মুন্সিফ আলী রহ.চেতনাকে সামনে রেখে খেলাফতের কাজ কে তরান্বিত করতে হবে : মাওলানা রেজাউল করিম জালালী জগন্নাথপুরের সামাজিক সংগঠন “KUDA” এর উদ‌্যোগে ফ্রি চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ বিতরন জগন্নাথপুরের কলকলিয়ার খোকন হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন দেশে মুসলিম জনগোষ্ঠী ৯১.০৪ শতাংশ, হিন্দু ৭.৯৫ শতাংশ

জগন্নাথপুরে আশ্রয়কেন্দ্র ছেড়ে বাড়ী ফিরতে সাহস পাচ্ছেন না বন্যাকবলিত মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক:- সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে গত কয়েকদিন বন্যার পানিতে কমতে শুরু হওয়ার পরও অনেক পরিবার আশ্রয় কেন্দ্র ছেড়ে বসতবাড়ীতে ফিরে যেতে সাহস পাচ্ছেনা। কারণ হিসাবে জানা যায় প্রতিদিনের বৃষ্টি ও বন‌্যা পানি বেড়ে যাওয়ার শংকা তবে কিছু কিছু পরিবার নিজ বাড়ীতে ফিরে যাচ্ছেন।

গত ১৬ জুন থেকে অব্যাহত বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে জগন্নাথপুর উপজেলা বন্যা কবলিত হয়ে পড়ে। ভোররাত থেকেই লোকজন আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নিতে থাকেন। ১৭ জুন সকাল থেকে উপজেলার একটি পৌরসভা ও আট ইউনিয়নের স্কুল কলেজ মাদ্রাসা সহ বিভিন্ন দপ্তরে বন্যা কবলিত মানুষেরা আশ্রয় নেন। পানি কমতে শুরু করায় গত মঙ্গলবার থেকে লোকজন বাড়ি ফিরতে শুরু করেছেন।

জগন্নাথপুর কলকলিয়া এলাকার বাসিন্দা আব্দুর আহাদ, জানান গত ১১ দিন ছিলাম ডায়মন্ড কমিউনিটি সেন্টারের আশ্রয় কেন্দ্রে। ঘর থেকে পানি না নামায় পরিবারের সবাইকে নিয়ে এখনো বাড়ি ফিরতে পারছিনা।

এদিকে বন‌্যার পানি কমে যাওয়ায় জগন্নাথপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় আশ্রয় কেন্দ্রে থেকে ১০ টি পরিবার চলে যায়। তাঁরা পৌর এলাকার বাদাউড়া এলাকা থেকে ওই কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছিলেন।ক্ষিতিপ দাস নামে বাদাউড়ার বাসিন্দা জানান, নিজের বাড়িঘর ছেড়ে কেউ আশ্রয় কেন্দ্রে গিয়ে থাকতে চায় না। নিরুপায় হয়ে থাকতে হয়েছে। তিনি বলেন, বাড়ি ঘরের বেহাল দশা। অনেক কষ্ট হবে থাকার উপযোগী করতে।

জগন্নাথপুর পৌর সভার ভারপ্রাপ্ত সচিব সতীশ গোস্বামী বলেন, পৌর ভবনে ৫ শতাধিক মানুষ আশ্রয় নিয়েছিলেন। শতাধিক মানুষ গতকাল থেকে বাড়ি ফিরছেন। পানি কমতে শুরু করেছে আশা করছি দ্রুত বানভাসি মানুষ আশ্রয় কেন্দ্র থেকে বাড়ি ফিরে যাবে।
জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাজেদুল ইসলাম বলেন, পানি কমতে শুরু করায় আশ্রয় কেন্দ্র থেকে মানুষ বাড়ি ফিরতে শুরু করেছেন।

     More News Of This Category

ফেসবুকে আমরা

 

 

Prayer Time Table

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ভোর ৪:১৭
  • দুপুর ১২:০৬
  • বিকাল ৪:৩৮
  • সন্ধ্যা ৬:৩৫
  • রাত ৭:৫৩
  • ভোর ৫:৩৩